আজ ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ইং

ভূরুঙ্গামারীতে মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছে ২শ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার

শামসুজ্জোহা সুজন, ভূরুঙ্গামারী।।

মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীর দুইশ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। জমি ও ঘর পাওয়ার আনন্দে দিন গুনছে এসব পরিবার। ‘আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে মুজিববর্ষ উপলক্ষে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে প্রায় ৩ কোটি ৪২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে গুচ্ছাকারে ও একক ভাবে নির্মাণ করা হয়েছে ২০০ টি সেমি পাকা ঘর। ঘরগুলো হস্তান্তরের অপেক্ষায় রয়েছে।
আগামী ২৩ জানুয়ারী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশে ৬৬ হাজার ১৮৯টি ঘর বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন হওয়ার সাথে সাথে ভূরুঙ্গামারী উপজেলার ২০০ জন গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মাঝে জমি ও ঘরের দলিলপত্র হস্তান্তর করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা জানান, ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘর হস্তান্তর উপলক্ষ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার দশ ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে ২০০টি ঘর তৈরির কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। যার মধ্যে ভূরুঙ্গামারীতে ৩১টি, জয়মনিরহাটে ৯টি, আন্ধারীঝাড়ে ৩টি, পাইকেরছড়ায় ২১টি, বলদিয়ায় ২৩টি, চর ভূরুঙ্গামারীতে ১৫টি, শিলখুড়িতে ২৬টি, পাথরডুবীতে ৪টি, তিলাইয়ে ১৮টি ও বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নে ৫০টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। ঘর হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারগুলোর মুখে হাসি ফুটবে। তারা এখন আনন্দের সঙ্গে অপেক্ষার প্রহর গুনছেন।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর আলম ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহিনুর আলমের প্রচেষ্টায় প্রভাবশালীদের দখলে থাকা উপজেলার বিভিন্ন স্থানের খাস জমি উদ্ধারের পাশাপাশি নির্মাণ কাজ তদারকি ও অগ্রগতি মনিটরিং করায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঘর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।
ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ঈশ্বরবড়ুয়া গ্রামের দিনমজুর শাহিনুর ইসলাম ও মানিক কাজি গ্রামের খোদেজা বেগম, বলদিয়া ইউনিয়নের ভিক্ষুক বিবি পাগলী ও শহিদুল ঘর পাওয়ার আনন্দে জানান, আগে মানুষের জমিতে থাকতাম, এখন আমাদের মাথা গোঁজার ঠাঁই হল। ঘর ও জমি পাওয়ায় আমরা খুব খুশি।

Leave a Reply

     এ জাতীয় আরও খবর.......

খবরটি বেশী পড়া হয়েছে

Don`t copy text!