আজ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

উলিপুরে নববধূকে অপহরণের অভিযোগ প্রেমিকার বিরুদ্ধে

ভাপ্রেস প্রতিবেদক, উলিপুর।।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে বিয়ের পরদিন এক নববধূকে অপহরণ করে জাের পূর্বক একাধিকবার ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে সাবেক প্রেমিকার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় নববধূর মা বাদী হয়ে ২৮ জুলাই বুধবার উলিপুর থানায় অপহরণ এবং ধর্ষনের অভিযােগ মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজাহার এবং পুলিশ সূত্রে জানাযায়, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার বেলগাছা ইউনিয়নের ছমির উদ্দিনের ছেলে সামিউল ইসলাম (৩০) এক প্রতিবেশির বাড়িতে যাতায়াত করত। এ সময় ওই প্রতিবেশির মেয়েকে বিভিন্ন সময় প্রেমের ও বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এক পর্যায় বিয়ের প্রলােভন দেখিয়ে প্রায় ছয় মাস পূর্ব সামিউল ইসলাম ওই মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তােলেন। বিষয়টি মেয়ের পরিবার জানতে পেয়ে সামিউল ইসলামের পরিবারকে জানায়। এ ঘটনায় সামিউল ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন এবং ওই মেয়েকে অপহরণ করার হুমকি দেন। মেয়ের পরিবার ভিত হয়ে দ্রুত পারবারিক ভাবে তাদের মেয়েকে গত ২১জুলাই উলিপুর উপজেলার পৌর শহরের এক বাসিন্দার সাথে বিয়ে দেয়। বিয়ের পরের দিন ২২জুলাই ভাের রাত সাবেক প্রেমিক সামিউল ইসলাম বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ওই নববধূকে শ্বশুর বাড়ি পালিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় নববধূর স্বামী সকালে উঠে স্ত্রীকে না পেয়ে শ্বশুর বাড়ির লােকজনকে খবর দেন। পর অনেক খােঁজা-খবরের পর ২৬ জুলাই মেয়ের পরিবারের লােকজন পঞ্চগড় জেলার বাদা থানার কাজল দিঘি এলাকার একটি বাড়িতে অপহরণকারী সামিউল ইসলামসহ ওই নববধূর সন্ধান পান। পরিবারের লােকজনকে সেখানে তাকে উদ্ধার করতে গেলে সামিউল ইসলাম নববধূকে রেখে পালিয়ে যান। এরপর পরিবারের লােকজন নববধূক নিয়ে আসার সময় জানতে পারেন সামিউল ইসলাম বিয়ের প্রলােভন দেখিয়ে জােরপূর্বক তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছেন। এ ঘটনায় ওই নববধূর মা বাদী হয়ে ২৮জুলাই বুধবার উলিপুর থানায় অপহরণ ও ধর্ষনের অভিযােগ এনে সামিউল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২৫।
উলিপুরের পৌর এলাকার বাসিন্দা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন,হিন্দু সম্প্রদায়ের ৪২ বছরের এক যুবকের সাথে ১৪বছরের মেয়ের দেয়া হয়েছে। মেয়েটি হিন্দু আর সাবেক প্রেমিক মুসলমান হওয়ায় তাদের মাঝে সম্পর্ক থাকলেও ছেলে এবং মেয়ের পরিবার মেনে নেয়নি। পরে মেয়েকে তাদের সম্প্রদায়ের ছেলের সাথে বিয়ে দেয়া হয়।
উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) রুহুল আমিন নববধূক অপহরণ ও ধর্ষনের অভিযােগে মামলা হবার কথা স্বীকার করে বলেন,নববধূকে উদ্ধার করা হয়েছে। আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

     এ জাতীয় আরও খবর.......

খবরটি বেশী পড়া হয়েছে

Don`t copy text!